About Tangila Ahsan

এক আপু পোস্ট করেছে সরাসরি কপি করলাম
..............................
দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে কিছুই করার থাকে না। আমার হাজবেন্ডও একজন বিজিবি সদস্য। মাঝে মাঝেই জিজ্ঞেস করতাম বিএসএফ রা এত বাড়াবাড়ি করে তোমরা এত শান্ত থাকো কিভাবে! সে বলতো সরকারি নিষেধাজ্ঞা আছে। আমাদের জবে কিছু রুলস , রেগুলেশন ফলো করে চলতে হয়। চাকরিও চলে যেতে পারে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে। কিন্তু আজকে যা হয়েছে দেয়ালে পিঠ ঠেকার মতই। একজন বিজিবি সদস্যের ওয়াইফ হিসেবে প্রাউড ফিল হচ্ছে। ভারতের বিএসএফ রা এবার একটু হলেও বুঝতে পেরেছে বাংলাদেশী বিজিবি জওয়ান রা এক একজন বাঘের বাচ্চা শুধু নিষেধাজ্ঞার কারনে চুপ থাকে।

স্বামীর যৌতুকের মামলায় স্ত্রীর সাজা
[ হ্যা যারা ভুল করবে তারা সাজা পাবেই, নারী হিসাবে আমার কোন আপত্তি নেই ]
লক্ষ্মীপুরে স্বামীর যৌতুকের মামলায় স্ত্রীর সাজা
স্ত্রী যৌতুক দাবী করায় ওয়াহেদ আলী নামীয় এক ব্যক্তি স্ত্রীর বিরুদ্ধে যৌতুক আইনে মামলা দায়ের করে। ওই মামলা স্ত্রীর বিরুদ্ধে এক বছরের সাজা ও দশ হাজার টাকা জরিমানার রায় দেয় বিচারিক আদালত।

সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট বিচারিক আদালত-৩ এর বিচারক নুসরাত জামান এ রায় দেন।

জানাযায়, চার বছর আগে লক্ষ্মীপুর সদরের ভবানীগঞ্জ ইউপির আলীপুর গ্রামের সফি উল্যাহ ভূঁইয়ার কন্যা আয়েশা আক্তার মিতুর সাথে একই ইউপির ধর্মপুর গ্রামের সৈয়দ আহম্মদের পুত্র ওয়াহেদ আলীর বিবাহ হয়। বিবাহের পর মিতু পড়তে ইচ্ছে কারায় তাকে লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজে ভর্তি করে দেয় স্বামী। এর পর থেকে মিতুর বেপরোয়া চলাফেরা দেখে স্বামী বাধা নিষেধ করলেও তা মানতনা মিতু। গত ৮/৫/১৮ইং ওয়াহেদ আলীর দেয়া স্বর্ণলংকার ও ঘরে রক্ষিত নগদ টাকা নিয়ে মিতু স্বামীর অজান্তে তার বাড়ি থেকে পিতার বাড়ি চলে যায়। এ ঘটনায় স্থানীয় শালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শালিশে স্ত্রী আয়েশা আক্তার মিতু স্বামীর কাছে নগদ ৫লক্ষ টাকা ও তার নামে ১০ডিং জমি রেজিষ্ট্রি দাবী করে। উক্ত টাকা ও জমি না দিলে মিতু স্বামীর জজিয়তে আসবে না এবং ঘর সংসার করবে না বলে জানায়। এ ঘটনায় ওয়াহেদ আলী বাদি হয়ে ১৬/৫/১৬ইং তারিখে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী অঞ্চল সদর লক্ষ্মীপুরে স্ত্রীর বিরুদ্ধে যৌতুক নিরোধ আইনের ৪ ধারায় মামলা দায়ের করে। যার সি আর মামলা নং ৪১৫/১৮ইং। দীর্ঘ বিচার প্রক্রিয়া শেষে আদালত আয়েশা আক্তার মিতুকে দোষী সাব্যস্ত করে একবছর কারাদন্ড ও ১০হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৩মাসের কারাদন্ডের রায় দেন।

ei song ta eto sundhor kebo

এক শ্রেণির মানুষ মিন্নিকে কেন দোষী বানানোর চেষ্টা করছে আমি বুঝিনা। মিন্নি যদি সত্যি অপরাধী হতো তাহলে তো রিফাত ফরাজি রিমান্ডে থাকা অবস্থায় তার নাম বলতো। আর বন্ড সাহেব তো ক্রসে যাওয়ার আগে সব ফাস করে দিতো কে না সে তকন খুনির আসামি। যাই কোহ কেই কিছু জানুক না জানুক মিন্নিকে তাদের অপরাধী সাজাতেই হবে। কেন? মিন্নি নারী বলে?

ঢাকাতে ছয় মাসের বৃষ্টি এক দিনে হলো

আমি হতবাক, নুসরাতকে যেভাবে পুড়িয়ে মারা হয়

শুভ সকাল, রমজারে প্রথম মিলিমিশিতে আসলাম।

বর্তমান সময়ে মোবাইল ফোন প্রায় সবাই ব্যবহার করেন। খুব খারাপ লাগে যদি শখের মোবাইল ফোনটি হারিয়ে যায়, চুরি হয় বা ছিনতাই হয়। অনেকেই নানা রকম জটিলতায় পড়েন। আপনার ফোনটি সর্বদাই প্যাটার্ন, সিকিউরিটি, ফেস,ফিঙ্গার লক করে রাখবেন। এতে হারিয়ে গেলে, চুরি হলে বা ছিনতাই হলে ফ্লাস দিয়ে অপর ব্যক্তি আপনার ব্যক্তিগত তথ্য পাবেনা। অর্থাৎ ফোনটির তথ্য মুছে যাবে। এরপর থানায় জিডি করবেন। জিডি করার সময় আপনার ফোনটির ব্রান্ড, মডেল ও ফোনে থাকা সিম নম্বর উল্লেখ করবেন।এরপর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল আপনার ফোনের IMEI Number. আই এম ই আই নম্বর সংরক্ষণ করবেন *#06# চেপে।দুটি IMEI number পাবেন। সিমের নম্বর দেখবেন গ্রামীন, রবি, এয়ারটেল *২#, বিএওল *511# চেপে।থানায় জিডি করতে কোন টাকা লাগেনা। এরপর অপেক্ষায় থাকুন। ঐ মোবাইলে যে কোন সিম ব্যবহার করলে ট্রাকিং এর মাধ্যমে ব্যবহারকারী ব্যক্তির পরিচয়, লোকেশন ও নম্বর জানা যাবে। ভাগ্য ভাল হলে ৯০% সম্ভাবনা থাকবে ফোনটি ফিরে পাবার। কেননা জিডি করলে ফোনটি উদ্ধারের জন্য পদক্ষেপ নেওয়া হয়। এক্ষেত্রে পুলিশের সফলতা অনেক বেশি।
আর ভুল করেও কোন পুরাতন মোবাইল কিনবেন না। মোবাইলটি চোরাই হলে, ছিনতাইকৃত হলে বা হারানো হলে ক্রেতা ফেঁসে যাবেন। একান্তই কিনলে দোকানের মেমো, ফোনের বক্স ও লিখিতভাবে কিনুন। চোরাই মোবাইল কিনে অনেকেই বিপদে পড়ছেন।
মোবাইল ফোনে হুমকি, ঘুষ দাবি, গোপন আলাপ, অপ্রীতিকর মেসেজ, ফেসবুক, মেসেঞ্জার, ইমো, হোয়াটস আপ, ভাইবার, ট্যাংগো, ফ্ল্যাট চ্যাট প্রভৃতি থেকে দূরে থাকুন। কেননা এসব আপনার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা হুমকির মুখে ফেলে দেবে৷ ফেসবুকে লাইক কমেন্ট করার সময় দেখে লাইক কমেন্ট করবেন। যেন হিতে বিপরীত না হয়। তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলা অত্যন্ত কঠিন। ফেসবুকে পোস্ট করার সময় অবশ্যই নজরে রাখবেন তা যেন কোন ব্যক্তি, সমাজ, সরকার, রাষ্ট্র, প্রতিষ্ঠান বা কোন সংগঠনের বিরুদ্ধে না হয়।
রাস্তা পারাপারের সময় কানে মোবাইল ফোন নিয়ে কথা বললে বা হেডফোন নিয়ে চললে গ্রেফতার হবেন অথবা বড় কোন দুর্ঘটনা হতে পারে।
মোবাইল ফোনে কেউ ফোন করে বিকাশ, রকেট ও অন্যান্য ব্যাংকিং সেবা দেওয়ার কথা বলে পিন নম্বর চাইলে বা কোন ডিজিট চাপতে বললে ফোন কেটে দেবেন।
জ্বীনের বাদশা, কোন দরবেশ বা কোন ফকির বাবা ধর্মের বাণী শোনালে বা মনোবাসনা পূর্ণ করে দিতে চাইলে ফোন কেটে দেবেন। লটারির এসএমএস বা টাকা পাওয়ার সুখবর দিয়ে কিছু চাইলে দেবেন না। মোবাইল ব্যাংকিং সেবা নেওয়ার সময় পিন নম্বর অন্য কাউকে দেখতে দেবেন না। দেখে ফেললে সাথে সাথে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে ফেলবেন।
মোবাইল ফোন অন্য কারো হাতে দেবেন না। আপনার ফোন থেকে কল বা মেসেজ পাঠিয়ে ক্রাইম করতে পারে।
মোবাইল ফোনে আপনার নিজের বা প্রেমিকার অশ্লীল ছবি রাখবেন না। এতে আপনি যে কোন সময় বিপদে পড়তে পারেন। ফেসবুকে বা মেসেঞ্জারে অচেনা মানুষের সাথে অযথা চ্যাট করবেন না।
ফোনের মাধ্যমে পণ্য কেনাবেচা করবেন না। মোবাইল ফোন আধুনিক বিজ্ঞানের ও জীবনের আশীর্বাদ কিন্তু এর অপব্যবহার যে কোন সময় আপনার জন্য অভিশাপ হয়ে উঠিতে পারে।
এস আই/শামীম হাসান
তদন্তকারী অফিসার( ইউবি)
বাংলাদেশ পুলিশ

সকল বন্ধুদেরকে একুশে রাতের প্রথম প্রহরের শুভেচ্ছা ও সমবেদনা। সকল শহীদের আত্মার শান্তি কামনা করছি।

শুভ সকাল বন্ধুরা :)

যেসব সমস্যা দেখা দিলে মেয়েদের ডাক্তার দেখানো জরুরি
আমাদের দেশের মেয়েরা (GIRLS) শারীরিক সমস্যার ক্ষেত্রে নিজেরাই বেশি অবহেলা করে থাকে। নানান আজুহাতে তারা নিজেদের রোগগুলো গোপন করে রাখে। ছোটখাটো অসুখ হলে তা এমনিতেই সেরে যায় বটে, তবে আপাতদৃষ্টিতে ক্ষুদ্র কোনো সমস্যার মধ্যেই লুকিয়ে থাকতে পারে বড় কোনো অসুখ।
* মাসিক ঋতুচক্রে (period)অতিরিক্ত রক্তপাত হলে।
* ঋতুচক্রে(period) অত্যন্ত কম রক্তপাত হলে।
* তলপেটে ভারীভাব অনুভূত হলে।
* প্রস্রাবের সময় অস্বস্তি বা জ্বালাভাব দেখা দিলে।
* ছয়মাস বা তারও বেশি সময় ধরে স্বাভাবিকভাবে চেষ্টা করা সত্ত্বেও গর্ভধারণ না হলে।
* ডিসমেনোরিয়া হচ্ছে (পিরিয়ডের সময় অস্বস্তি/ পেটব্যথা) এবং যত দিন যাচ্ছে সেটা ক্রমশ বাড়ছে।
* মলত্যাগের সময় যন্ত্রণা করলে।
* যৌনাঙ্গ থেকে কোনো ক্ষরণ হচ্ছে এবং তার একটা তীব্র গন্ধ আছে।
* স্তনে কোনো লাম্প হলে ।
* তলপেটে ফোলাভাব দেখা দিলে ।

ছবিটা হয়তো কাল্পনিক, কিন্তু বাস্তবতা আরো ভয়াবহ, সমস্ত পুরুষ জাতির প্রতি অনুরোধ, আপনার জীবনের সাথে জড়িয়ে আছে অনেকের জীবন। প্লিজ, নিজেকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিবেন না না না।

BPL + GTV live

পড়া-লেখা করি, ঘুমাই আর ফেইজবু ও মিলিমিশি চালাই। আর কোন কাজ নাই

কার পয়েন্ট কত?? আমার 128 পয়েন্ট (মিথ্যা বলিলে ব্যক্তিত্ব নষ্ট হয়)।

যাই হোক কুইজে অংশ নিয়ে অনেক কিছু শিখতে পারি। সাথে পয়েন্টও পাই। মোবাইল থেকে বার বার লগিন করতে হয় এই বিষয়টা একটা যেন কর্তৃপক্ষ নজর রাখে। ফেইজবুক তো একবার লগিন করলে আর দ্বিতীয়বার লগিন করার প্রয়োজন হয় না।

কেউ হাসলে জরিমানা।

কিউট বিনোদন

আমার SSC মার্কসিট হারিয়েছে :( এখন কি করবো!? কেউ জানাবেন প্লিজ

19-Oct-2019 তারিখের কুইজ
(অংশগ্রহণ করেছেন: 3718 জন)
প্রশ্নঃ শিক্ষার পাশাপাশি শুদ্ধ ও সুন্দর করে কথা বলতে ও লিখতে পারা মানবিক গুনাবলীর অন্যতম। সফল মানুষদের মানবিক গুণাবলির মধ্যে রয়েছে: পরিশ্রমী, সৎ ও ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন হওয়া, অধ্যবসায়ী হওয়া, পরিপাঠি ও গোছালো থাকা। সফল মানুষদের অন্যতম একটা গুণাবলি হলো তারা রাতে দ্রুত ঘুমাতে যান ও সকালে দ্রুত উঠেন। নিচের কোন বাক্যটি শুদ্ধ বানানে লেখা রয়েছে?
(A) আজ যা করা সম্ভব, তা আগামী কালের জন্য ফেলে রাখা যাবে না
(B) শিক্ষা গ্রহণের পাশাপাশি স্বাস্তের যত্ন নিতে হবে
(C) লবন, চর্বি, চিনি কম খাওয়া উচিৎ
17-Oct-2019 তারিখের কুইজ
(অংশগ্রহণ করেছেন: 4037 জন)
প্রশ্নঃ অ্যানড্রয়েড বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেম। গুগল এটির উন্নয়ন করছে। বর্তমানে গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে, মোবাইল ফোন থেকে নির্গত রেডিয়েশন নারী ও পুরষের সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা কমিয়ে দেয় এবং মাত্রাধিক ব্যবহারে ক্যান্সার হওয়ার ঝুকি অনেক বেশি। অপ্রয়োজনে মোবাইল ফোন ব্যবহার করা উচিত নয়, যেমন- গেইম খেলা, বেশি মাত্রায় ইন্টারনেট ব্যবহার করা একেবারেই উচিত নয়। বর্তমানে অ্যানড্রয়েড এর আপডেট ভার্সন কোনটি? (অক্টোবর 2019 পর্যন্ত)
(A) ওরিও
(B) মার্শম্যালো
(C) পাই
15-Oct-2019 তারিখের কুইজ
(অংশগ্রহণ করেছেন: 4216 জন)
প্রশ্নঃ বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ নোবেল পুরস্কার বিজয়ীরা পান নগদ অর্থ, একটি স্বর্ণের পদক ও একটি সনদ। নগদ অর্থের পরিমান আনুমানিক ৯ কোটি ৪ লাখ টাকা (১১ লাখ ২০ হাজার ডলার)। যিনি ২০১৯ সালে রসায়নে নোবেল পুরস্কার লাভ করেছেন, তাকে লিথিয়াম আয়ন (মোবাইল ও ল্যাপটপের ব্যাটারি) ব্যাটারির জনক হিসেবে অভিহিত করা হয়, তিনি কে?
(A) আবি আহমেদ
(B) আকিরা ইয়োশিনো
(C) মাইকেল ক্রেমার